avertisements 2
Text

রাশেদুল ইসলাম

নিজেকে অভিজাত মনে হয় রাশেদুল ইসলাম (তের)

প্রকাশ: ১১:০২ পিএম, ১২ ফেব্রুয়ারী,শুক্রবার,২০২১ | আপডেট: ০৭:০৩ এএম, ৮ মে,শনিবার,২০২১

Text

বাঙালীর একটা বদনাম আছে । ‘বাঙালী একা একশ’ হতে পারে; কিন্তু একশ’ বাঙালী মিলে কখনও এক হতে পারে না’ । অভিযোগটা একেবারে অমূলক নয় । কারণ, বাঙালীর স্বভাব অনেকটা বটগাছের মত । বটগাছ যেমন তার নিচে অন্য কোন গাছ জন্মাতে দেয় না; একজন বাঙালীও যখন নিজে কোন না কোনভাবে বটগাছ হয়ে যায়, তখন সেও তার আশেপাশে আর কাউকে উঠতে দেয়না । তবে এর ব্যতিক্রম আছে । একশ’ বাঙালী এক হওয়ার উজ্জ্বল দৃষ্টান্তও রয়েছে । আর একশ’ বাঙালী যখন এক হয়, তখন ‘বিশ্ব অবাক তাকিয়ে রয়’ । কি অমিত তেজ ও শক্তি এই বাঙালী জাতির ! বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন সেই উজ্জ্বল দৃষ্টান্তের একটি । আমি ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কাছে । নত মস্তকে কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারের সামনে দাঁড়িয়ে । একুশের স্মৃতি আমাকে তাড়া করে । 

 

সত্যই, বায়ান্নর ভাষা আন্দোলন একটি বিস্ময়কর আন্দোলন । একটি সদ্য স্বাধীনতা প্রাপ্ত দেশের শাসকগোষ্ঠী, যাদের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে অর্জিত হয়েছে এ দেশের স্বাধীনতা, সেই শাসক গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে আন্দোলন । সত্যিই বিস্ময়কর ! ইংরেজদের বিরুদ্ধে স্বাধীনতা অর্জনের ব্যর্থ চেষ্টা হয় ১৮৫৭ সালে । তারপর পরবর্তী নব্বই বছরের ছোট বড় অনেক বিদ্রোহ, বহু দেশপ্রেমিক মানুষের আত্মদান এবং অনেকগুলো রক্তক্ষয়ী দাঙ্গা পার হয়ে অর্জিত হয় ১৯৪৭ সালের স্বাধীনতা । ১৪ আগস্ট, ১৯৪৭ পাকিস্তান নামক একটি নতুন মুসলিম রাষ্ট্রের জন্ম । কিন্তু একটি স্বাধীন মুসলিম দেশে ধর্মীয় বা অর্থনৈতিক উন্নয়নের কোন চেষ্টা নেই । পরাধীন দেশে যে বড়লাট ছিলেন সাদা চামড়ার বিলাতের একজন ইংরেজ; স্বাধীন দেশে সেই বড়লাট এখন গৌরবর্ণের একজন গুজরাটি পাকিস্তানি । বিলাতের ইংরেজ প্রায় দুশো বছরের শাসনকালে এদেশের সংস্কৃতিতে হাত দেয়নি । কিন্তু, পাকিস্তানের বড়লাট ছয় মাসের মধ্যেই এ দেশের রাষ্ট্রভাষা উর্দু করতে চান । বাংলা মায়ের মুখের ভাষা কেড়ে নিতে চান । এই ঘোষণায় গর্জে ওঠে বাঙালী । একশ’ বাঙালী এক হয়ে যায় । ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রভাষা বাংলা করার দাবীতে অকুতোভয় বাঙালী ছাত্রসমাজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে । পুলিশের গুলিবর্ষণে সেদিন রফিক, শফিক, সালাম, বরকত, জব্বারসহ নাম না জানা অনেকে শহীদ হন । এসব শহীদের রক্ত যে কত শক্তিশালী অচিরেই তা টের পায় শাসক শ্রেণি । দেশব্যাপী গর্জে ওঠে সাধারণ মানুষ । 

ঢাকা মেডিকেল কলেজের ছাত্ররা দুদিনের মধ্যেই ‘শহীদ স্মৃতিস্তম্ভ’ তৈরি করে। ১৯৫২ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি স্মৃতিস্তম্ভের নির্মাণ কাজ শুরু করে রাতের মধ্যেই তা শেষ করেন তাঁরা । সকলের নজর কাড়ে এই ‘শহীদ স্মৃতিস্তম্ভ’ । দলে দলে লোক জড় হতে থাকে । দৈনিক আজাদ পত্রিকার সম্পাদক আবুল কালাম শামসুদ্দিন ২৬ ফেব্রুয়ারি সকাল ১০ টায় ‘শহিদ স্মৃতিস্তম্ভ’টি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন । সেদিন বিকালেই পুলিশ ও সেনাবাহিনী ঢাকা মেডিকেল কলেজ ঘিরে ফেলে এবং স্মৃতিস্তম্ভ’টি ভেঙ্গে ফেলে । ঢাকা কলেজে একটি স্মৃতিস্তম্ভ’ নির্মাণ করা হয় । পুলিশ ও সেনাবাহিনী সেটিও ভেঙ্গে ফেলে । কিন্তু শত বাঁধাবিপত্তি সত্ত্বেও দেশব্যাপী শহীদ মিনার নির্মাণ শুরু হয় । ১৯৫৩ সাল থেকে ২১ ফেব্রুয়ারিকে দেশব্যাপী ‘শহীদ দিবস’ হিসেবে পালন করা শুরু হয় ।  আধুনিক শহীদ মিনারের স্থপতি চিত্রশিল্পী হামিদুর রহমান । ১৯৫৭ সালে বাংলা অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেলে ঢাকা কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার নির্মাণের কাজ শুরু হয় ।

 

 

 

C:\Users\User\Desktop\120px-২১_ফেব্রুয়ারি_২০১৮_সালে_শহিদ_মিনার.jpg

 

 

২১ ফেব্রুয়ারি বা ‘শহীদ দিবস’ এর সুদূর প্রসারী প্রভাব লক্ষণীয় । একুশে ফেব্রুয়ারির ভাষা আন্দোলনকে কেন্দ্র করে যে বাঙালি জাতীয় চেতনার উন্মেষ ঘটে, তার মধ্যেই বাঙালির স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার বীজ রোপিত হয় । ১৯৬৬ সালের ছয়দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ এর গণঅভ্যুত্থান, ১৯৭০ এর নির্বাচন এবং ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ সবই একই সুতোয় গাঁথা । 

এ ক্ষেত্রে আরও দু’টি বিষয় লক্ষণীয়ঃ 

১) দেশ ও দশের কল্যাণে জীবন বিসর্জন যে মানুষের জীবনকে কত মহীয়ান করে, তার বাস্তব প্রমাণ একুশের শহীদগণ । প্রতিবছর ফেব্রুয়ারি মাসে শুধু দেশে নয়, পৃথিবীর যে কোন প্রান্তের বাংলা ভাষাভাষী মানুষ একুশের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে এবং তাঁদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে । যতদিন বাঙালি স্বত্বা পৃথিবীতে টিকে থাকবে, ততদিন এভাবে সবাই তাঁদের স্মরণ করবে । শুধু তাঁরা নন, তাঁদের উপর একটি গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি...’ রচনার কারণে গীতিকার আবদুল গাফফার চৌধুরী জীবন্ত কিংবদন্তি হয়ে আছেন । গানটির সুরকার আলতাপ মাহমুদ অমর হয়ে আছেন । ২১ ফেব্রুয়ারি জাতীয় শহীদ দিবস উদযাপনের আয়োজক হিসেবে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিরল সম্মানের অধিকারী হয়েছে । 

২) শুধু দেশে নয়, আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিরল সম্মান এনেছে একুশে ফেব্রুয়ারি; পৃথিবীর উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়েছে বাংলাদেশের একুশে ফেব্রুয়ারি । এক্ষেত্রে কয়েকজন সাধারণ মানুষের অসাধারণ ভূমিকার কথাও না বললে নয় ।  আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসঃ

 অমর একুশে ফেব্রুয়ারি এখন শুধু শহীদ দিবস নয়; এটি এখন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস । ১৯৯৯ সালের ১৭ নভেম্বর ফ্রান্সের প্যারিসে অনুষ্ঠিত ইউনেস্কোর ৩০ তম অধিবেশনে ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয় । ২০০০ সাল থেকে জাতিসংঘের সদস্য  পৃথিবীর  ১৮৮ টি দেশ আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে দিনটি পালন করে আসছে । ২০১০ সালে জাতিসংঘের ৬৫তম সাধারণ পরিষদেও প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে গৃহীত হয়েছে । বাংলাদেশের একটি জাতীয় দিবসকে জাতিসংঘ আন্তর্জাতিক দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার কারণে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হয়েছে । কিন্তু এই কৃতিত্বের দাবিদার কয়েকজন প্রবাসী বাঙালির । একজন সাধারণ মানুষের সদিচ্ছা ও আন্তরিকতা কিভাবে নিজের দেশকে সমুজ্জ্বল করে এটি তার একটি উল্লেখযোগ্য দৃষ্টান্ত । 

কানাডায় বসবাসরত দুজন প্রবাসী বাঙালি জনাব রফিকুল ইসলাম এবং আব্দুস সালাম ১৯৯৮ সালে জাতিসংঘের মহাসচিব কফি আনানের কাছে একটি পত্র লেখেন । পত্রে তাঁরা বাংলা মাতৃভাষার জন্য একুশে ফেব্রুয়ারিতে শহীদদের আত্মত্যাগের কথা উল্লেখ করে এই দিনটি একটি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণার প্রস্তাব করেন । কফি আনানের অফিস থেকে এ বিষয়ে প্যারিসের ইউনেস্কো সদর দপ্তরে যোগাযোগের জন্য বলা হয় । এরপর তাঁরা ইউনেস্কো সদর দপ্তরে আবেদন করেন । এ প্রেক্ষিতে ১৯৯৯ সালে ইউনেস্কো ভাষা বিভাগের কর্মকর্তা আনা মারিয়া একটি পত্রে ইউনেস্কো পরিচালনা পরিষদের সদস্য রাষ্ট্রের মাধ্যমে প্রস্তাবটি প্রেরনের পরামর্শ দেন । জনাব রফিকুল ইসালাম বিষয়টি বাংলাদেশের শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে জানান । শিক্ষা মন্ত্রণালয় বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়কে অবহিত করে । সময় স্বল্পতার কারণে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজে এ বিষয়ে সরাসরি ইউনেস্কো সদর দপ্তরে প্রস্তাব প্রেরণের নির্দেশ দেন । 

ইউনেস্কো সদর দপ্তর প্রস্তাবিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস বিষয়ে দুটি সমস্যার উল্লেখ করেন – 

(১) প্রতিবছর ১ লক্ষ ডলারের আর্থিক সংশ্লেষ এবং (২) নামকরণ । 

প্যারিসে অনুষ্ঠিত ১৯৯৯ সালের ইউনেস্কো নির্বাহী পরিষদের ১৪৫ তম অধিবেশন এবং ৩০ তম সাধারণ সম্মেলনে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের প্রধান ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী জনাব এ এস এইচকে সাদেক । তিনি তাঁর কূটনৈতিক দক্ষতায় উপস্থিত সকলকে বোঝাতে সক্ষম হন যে, এই ঘোষণায় জাতিসংঘের কোন আর্থিক সংশ্লেষ থাকবে না । কারণ মাতৃভাষার প্রতি সকলের আন্তরিক ভালোবাসা আছে । তাই, অন্তরের ভালোবাসা দিয়েই নিজেদের খরচে সব দেশ   দিবসটি  পালন করবে । তারিখ নির্ধারণ বিষয়ে কোন কোন  দেশ  থেকে প্রশ্ন তোলা হলে,   তিনি ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারিতে ভাষা শহীদদের মনের আকুলতা তুলে ধরেণ এবং এ বিষয়ে সকলের সম্মতি লাভে সমর্থ হন (ডঃ মোহাম্মদ হান্নান, ১৯৯৯) । 

অমর একুশের শহীদ দিবসকে জাতিসংঘ ঘোষিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে পালনের ব্যবস্থা গ্রহনে কানাডা প্রবাসী জনাব রফিকুল ইসলামসহ দেশে বিদেশে যারা প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে অবদান রেখেছেন – তাঁদের সকলের প্রতি আমি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করছি । 

(চলবে )

ইস্কাটন, ঢাকা, ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ।

 

বিষয়:
avertisements 2
আগুন থেকে সন্তানদের উদ্ধার করায় গ্রেফতার মা!
আগুন থেকে সন্তানদের উদ্ধার করায় গ্রেফতার মা!
শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার ৯ শহরে ব্যাপক বিক্ষোভের প্রস্তুতি
শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার ৯ শহরে ব্যাপক বিক্ষোভের প্রস্তুতি
অস্ট্রেলিয়ার দাবানল নেভাতে বিপুল পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ
অস্ট্রেলিয়ার দাবানল নেভাতে বিপুল পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ
কয়েক দশক লাগবে অস্ট্রেলিয়ার দাবানলের ধ্বংসের চিহ্ন মুছতে
কয়েক দশক লাগবে অস্ট্রেলিয়ার দাবানলের ধ্বংসের চিহ্ন মুছতে
আগামীকাল অস্ট্রেলিয়ায় ১০ হাজার উট গুলি করে মারা হবে
আগামীকাল অস্ট্রেলিয়ায় ১০ হাজার উট গুলি করে মারা হবে
মাসের পর মাস দাবানল চলতে পারে : প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন
মাসের পর মাস দাবানল চলতে পারে : প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন
মুসলিম-খ্রিস্টান মিলে অস্ট্রেলিয়ায় বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা
মুসলিম-খ্রিস্টান মিলে অস্ট্রেলিয়ায় বৃষ্টির জন্য প্রার্থনা
ভয়ার্ত প্রাণীগুলো মানুষ দেখলেই জড়িয়ে ধরছে
ভয়ার্ত প্রাণীগুলো মানুষ দেখলেই জড়িয়ে ধরছে
অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাবানলে ক্ষতিগ্রস্তদের তোপের মুখে
অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী দাবানলে ক্ষতিগ্রস্তদের তোপের মুখে
অস্ট্রেলিয়ায় দাবানলের মৃত্যু হয়েছে ৫০ কোটি বন্যপ্রাণীর
অস্ট্রেলিয়ায় দাবানলের মৃত্যু হয়েছে ৫০ কোটি বন্যপ্রাণীর
বর্ষবরণে সিডনির আতশবাজি উৎসব ঘিরে বিতর্কের ঝড়
বর্ষবরণে সিডনির আতশবাজি উৎসব ঘিরে বিতর্কের ঝড়
অস্ট্রেলিয়ায় গত কয়েকদিনের দাবানলে অন্তত ১৩ জনের প্রাণহানি
অস্ট্রেলিয়ায় গত কয়েকদিনের দাবানলে অন্তত ১৩ জনের প্রাণহানি
অস্ট্রেলিয়া জ্বলছেই!: হাজারো মানুষ ছুটছে সৈকতের দিকে
অস্ট্রেলিয়া জ্বলছেই!: হাজারো মানুষ ছুটছে সৈকতের দিকে
নিউ সাউথ ওয়েলসে দমকল কর্মীর মৃত্যু
নিউ সাউথ ওয়েলসে দমকল কর্মীর মৃত্যু
দাবানলের কারনে ভিক্টোরিয়া রাজ্যের ইস্ট গিপসল্যান্ডের অধিবাসীদের এলাকা ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ
দাবানলের কারনে ভিক্টোরিয়া রাজ্যের ইস্ট গিপসল্যান্ডের অধিবাসীদের এলাকা ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ
সিডনিতে দুই বাংলাদেশীর  আকস্মিক মৃত্যু
সিডনিতে দুই বাংলাদেশীর আকস্মিক মৃত্যু
সিডনিতে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনী খুন
সিডনিতে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনী খুন
অস্ট্রেলিয়ার কারাগারেই আরেক বন্দিকে কোপালেন সেই বাংলাদেশি ছাত্রী সোমা
অস্ট্রেলিয়ার কারাগারেই আরেক বন্দিকে কোপালেন সেই বাংলাদেশি ছাত্রী সোমা
কিশোরীর সাথে যৌন সম্পর্কের চেষ্টাঃ সিডনিতে বাংলাদেশী ছাত্র গ্রেপ্তার
কিশোরীর সাথে যৌন সম্পর্কের চেষ্টাঃ সিডনিতে বাংলাদেশী ছাত্র গ্রেপ্তার
হুইপপুত্রের গোপন ব্যবসার বলি তরুণ ব্যাংকার
হুইপপুত্রের গোপন ব্যবসার বলি তরুণ ব্যাংকার
কুইন্সল্যান্ডে বারবিকিউ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষককের আকস্মিক মৃত্যু
কুইন্সল্যান্ডে বারবিকিউ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষককের আকস্মিক মৃত্যু
মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে পড়ে সিডনির  দুই বাংলাদেশীর  মৃত্যু
মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে পড়ে সিডনির  দুই বাংলাদেশীর  মৃত্যু
নিউ সাউথ ওয়েলসের স্যাংচুরী পয়েন্ট থেকে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনের ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার
নিউ সাউথ ওয়েলসের স্যাংচুরী পয়েন্ট থেকে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত তরুনের ভাসমান মৃতদেহ উদ্ধার
মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে পড়ে সিডনির বাংলাদেশী ব্যবসায়ীর মৃত্যু (ভিডিও)
মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে পড়ে সিডনির বাংলাদেশী ব্যবসায়ীর মৃত্যু (ভিডিও)
সিডনির মিউচুয়াল প্রপার্টি গ্রুপের ৪৯% শেয়ার কিনেছেন চাইনিজ কনস্ট্রাকশন গ্রুপ রিশল্যান্ড প্রজেক্ট কোং
সিডনির মিউচুয়াল প্রপার্টি গ্রুপের ৪৯% শেয়ার কিনেছেন চাইনিজ কনস্ট্রাকশন গ্রুপ রিশল্যান্ড প্রজেক্ট কোং
মেলবোর্নে  বাংলাদেশি চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ
মেলবোর্নে বাংলাদেশি চিকিৎসকের বিরুদ্ধে রোগীকে ধর্ষণ ও যৌন হয়রানির অভিযোগ
দরপত্র ছাড়াই সাতক্ষীরার হাজী নাসিরউদ্দিন কলেজের গাছ কেটে সাবাড়
দরপত্র ছাড়াই সাতক্ষীরার হাজী নাসিরউদ্দিন কলেজের গাছ কেটে সাবাড়
সিডনি থেকে হারিয়ে যাওয়া বাংলাদেশী ছাত্রের সন্ধান ১৬ বছরেও মেলেনি 
সিডনি থেকে হারিয়ে যাওয়া বাংলাদেশী ছাত্রের সন্ধান ১৬ বছরেও মেলেনি 
সিডনিতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশী ছাত্র রিফাতের মৃত্যু
সিডনিতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত বাংলাদেশী ছাত্র রিফাতের মৃত্যু
নামাজ চলাকালীন সময়ে সিডনির ওবার্নের গ্যাল্লিপোলি মসজিদে আক্রমন
নামাজ চলাকালীন সময়ে সিডনির ওবার্নের গ্যাল্লিপোলি মসজিদে আক্রমন
avertisements 2
avertisements 2