avertisements 2

ইয়াবা দিয়ে কলেজছাত্রকে ফাঁসানোর চেষ্টা’, ৩ কনস্টেবল বরখাস্ত

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ২ ডিসেম্বর,শুক্রবার,২০২২ | আপডেট: ০১:৩৭ এএম, ২১ জুলাই,রবিবার,২০২৪

Text

এক পুলিশ কর্মকর্তার কলেজ পড়ুয়া ছেলেকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টার অভিযোগে সিলেটে পুলিশের তিন কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার বিকালে সিলেট নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (গণমাধ্যম) সুদীপ দাস বলেন, “গত ২৪ নভেম্বর দেওয়া তদন্ত প্রতিবেদনে ঘটনাটি প্রমাণিত হওয়ায় তিন কনস্টেবলকে সাময়িক বরখাস্ত করে পুলিশ লাইনসে যুক্ত করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলাসহ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’’ 

বরখাস্ত হওয়া তিন কনস্টেবল হলেন- সিলেট নগর পুলিশে কর্মরত মো. ঝুনু হোসেন জয়, ইমরান মিয়া ও মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।  তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন, সিলেটের শাহপারাণ (র.) থানাধীন মেজরটিলা এলাকার বাসিন্দা সাইফুর রহমান আসাদ (১৮)। তিনি পুলিশ সদর দফতরের পিআইও শাখায় কর্মরত পুলিশ পরিদর্শক আবু সায়েদের ছেলে। 

সিলেট নগর পুলিশ জানায়, আসাদ গত ১৩ অক্টোবর অনলাইনে পুরনো একটি মোবাইল ফোন বিক্রি করেন। সেই টাকা নিতে ওইদিন সন্ধ্যায় এক বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় যান। পরে তারা দুজন শাহজালাল (রহ.) মাজার এলাকায় যান। 

সেখানে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর তিন পুলিশ সদস্য এসে আসাদ ও তার বন্ধুকে ঝাপটে ধরে তাদের সঙ্গে থাকা একটি ব্যাগ তল্লাশি করে ইয়াবা পেয়েছেন দাবি করেন। ওই ঘটনার প্রতিবাদ করেন দুই বন্ধু। পরে আসাদ পুলিশে কর্মরত তার বাবার পরিচয় দেন এবং বিষয়টি বাবাকে জানান। 

খবর পেয়ে শাহপরাণ থানার এসআই জামাল ভূঁইয়া ঘটনাস্থলে যান। তিনি আসাদ ও তার বন্ধুকে নগরীর কোতোয়ালী থানায় নিয়ে যান। সেখানে মুচলেকা রেখে তাদেরকে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে তিন কনস্টেবলের বিরুদ্ধে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা ও টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ করেন আসাদ । 

সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এসএমপি পুলিশ লাইনের এডিসি (ফোর্স) সালেহ আহমদকে ঘটনাটি তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়। তদন্তে তিন কনস্টেবলের অপরাধের সত্যতা পেয়ে ২৪ নভেম্বর প্রতিবেদন দাখিল করেন তিনি।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2