avertisements 2

তারাই দিনশেষে একেকজন ডিভোর্সি

ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশ: ০৩:১০ এএম, ৩ নভেম্বর,মঙ্গলবার,২০২০ | আপডেট: ০৮:০২ পিএম, ১৭ মে,সোমবার,২০২১

Text

ঢাবিতে পড়ার সময় একদিন সেন্ট্রাল লাইব্রেরিতে কুরআন শরীফ পড়তে যেয়ে দেখি এক পাশের সাদা পাতাটায় লেখা- আমি আমার হাজব্যান্ডের সাথে অন্যায় করেছি,সংসার ভেংেছি। এই কুরআন যারা পড়বেন তারা আমার জন্য দোয়া করবেন যেন আমি আমার সংসার ফিরে পাই।

মেয়ে মানুষ মাত্রই সংসারী।কয়েকদিন যাবত ডিভোর্স হওয়া বিভিন্ন তারকাদের নিয়ে স্টাডি করছিলাম। অপু বলেন অথবা বাধন কিংবা প্রভা সবাই চেয়েছিলো সংসার করতে।অপুকে ক্যারিয়ার না সংসার কোনটাকে প্রাধান্য দিবেন জিজ্ঞেস করার পরে সে সংসারকেই প্রাধান্য দিয়েছিলো। ডিভোর্সের পরে অনেকেই সন্তানের ভরণপোষণের খরচের জন্য ঘুরে মরেন,অনেকেই আবার নিজ ঘাড়ে দায়িত্ব নিয়ে নেন।অথচ এই দায়িত্ব আপনার ছিলনা।

নায়িকা পপি ৪০বছরে পা দিয়েও আজও মনের মতো বর খুজে পাননি, কিন্ত তিনি খুজছেন এখনো।
কথায় বলে অতিবড় সুন্দরী না পায় বর, অতি বড় সংসারী না পায় ঘর।কেউ ঘর পাক অথবা না পাক একটা ঘরের আশায় মরিয়া প্রতিটি নারী,ন্যাচারালি এক বাক্যেই বলা যায় বেশিরভাগ মেয়েই সংসার করতে চায়।

আজ যে সুশীল মহিলা আপনাকে বলবে বোরখা হিজাবের কারনে আপনার খমতায়ন হয়নি,আজকে যারা আপনাকে নারী অধিকারের সবক দিতে এসে বলবে চাকুরী পাওয়ার আগে বিয়ে নয়,ক্যারিয়ার গুছানোর আগে বাচ্চা নয়, তারাই দিনশেষে একেকজন ডিভোর্সি অথবা অবিবাহিত। তারাই আপনার ঘরের মতো একটা শান্তির নীড় খুজে খুজে প্রানাতিপাত করছে।সেদিন ইলোরা গহরের ভিডিও তো দেখেছেনই আপনারা,পিটুনি খেয়ে লাইভে এসেছেন। আধুনিকতার ফেইসপ্যাক মুখে লাগিয়ে ছোট কাপড় পড়ে ফেললেই খমতাবান হওয়া যায়না এটা এই দেশের নারীরা কবে বুঝবে?

আপনারা পোশাকের সাধীনতার কথা বলেন মত প্রকাশের সাধীনতার কথা বলেন,যারা বোরখা পড়ে হিজাব পড়ে তাদের এসব পড়ার সাধীনতা কেন বোঝেন না?মনে আছে আইএলটিএসের পরীক্ষার দিন ছবি তুলতে যেয়ে ফটোগ্রাফার কান দেখাতে হবে বলতে বলতে প্রায় আমার মাথার কাপড়টা ফেলেই দিচ্ছিলো,যতোই কান বের করি কান নাকি বের হয়নি। এসব আপনারা জেনে বুঝেই করেন তো তাইনা?

ঘরের মেয়েদেরকে রাস্তায় নামিয়ে তাদের ঘোমটা নামিয়ে আপনাদের অশেষ ফায়দা হয়, ঠিক যেমন শেয়ালের ফায়দা হয় তার কাছে মুরগি বাগি দিলে...........

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2