avertisements 2

শুধু মাধবীর জন্য -১৬

মো: আসাদুজ্জামান
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ১৪ অক্টোবর,বৃহস্পতিবার,২০২১ | আপডেট: ০৪:২৫ পিএম, ২৫ অক্টোবর,সোমবার,২০২১

Text

মান্নাদে কেন এত জানতে চাইতো ? কেন ভালোবাসার মানুষের জন্য এত ব্যাকুলতা ? এখনো কি রাত নিঝুম হলে তোমার পাশে শরৎ কাহিনী খোলা পড়ে থাকে ? ব্যাকুল তিয়াসে আমার পিয়াসে অন্তর কেঁদে মরে ? এখনো কি প্রথম সকাল হলে স্নানটি সেরে পূজার ছলে আমার কথা ভাবো ? এখনো কি সন্ধ্যাবেলা আমার বাড়ী ফেরার সময় পেরিয়ে গেলে অনেক অভিমানে চোখ দু’টো কি জলে ভরে ? আজ মান্নাদের মত খুব জানতে ইচ্ছে করছে । তোমাকে কতদিন লেখা হয় নি, মনের সঙ্গোপনে লুকিয়ে থাকা হাসি কান্না, আনন্দ বেদনার কথা হয় নি অনন্তকাল তোমার সাথে মাধবী । বন্ধু ড: মাহবুবুল হক রিপন, মালয়েশিয়ার একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক তোমাকে লিখতে বললো, তাই অভিমানের সীমানা পেরিয়ে লিখছি । 
মাধবী , মনটা ইদানীং উঁচাটন থাকে । উঁচাটন শব্দের অর্থ বোধহয় তোমাকে একদিন বলেছিলাম । আবারও বলছি , উঁচাটন অর্থ , চাঁদ মুখ যখন বিরহের মেঘে ঢাকা থাকে তখন এটাকে উঁচাটন বলে । ঠিক যেমন তোমার বিরহে আমার চাঁদের মত সদা হাস্যেজ্জ্বল মুখটা বিরহে কাতর থাকে 😭! কি বিশ্বাস হলো না ? নাই হতে পারে , আমাকে বিশ্বাস করলে তো বিরহের অনলে পুড়াতে না । 
মাধবী, তুমি আমার যুগ যুগান্তরের বঁধূ । বঁধূ ডাকে দোষ নেই , ভুল বুঝো না । বঁধূ মানে বন্ধু, যাকে বিলেতি ভাষায় বলে friend , wife কিংবা বধু নয় ! শব্দের এই ভিন্ন আঙ্গিকের বিতর্কটি সম্প্রতি কিছু প্রাজ্ঞ-বিজ্ঞ - বিদগ্ধজনেরা সামনে এনেছেন । 
মাধবী, 
তুমি জানো সম্প্রতি বিএনপি তত্বাবধায়ক সরকারের দাবী তুলেছে , আওয়ামীলীগ বলছে এ দাবী মানবে না, এ দাবী সুপ্রিম কোর্টের রায়ের পরিপন্থী , এ দাবী অন্যায্য । আওয়ামীলীগ পারেও ! হিটলারের তথ্যমন্ত্রি গোয়েবলস বেঁচে থাকলে এদের কাছে দীক্ষা নিতে আসতো নিশ্চয়ই । আমি কিন্ত ইতিমধ্যেই লিখে ফেলেছি তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবী যৌক্তিক, সাংবিধানিক, সুপ্রিম কোর্ট প্রদত্ত সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনীর রায়ের  মধ্যেই এর যৌক্তিকতা, বৈধতা এবং ন্যায়সঙ্গতা আছে । তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবী সাংবিধানের মৌলিক কাঠামোর (বিশেষ করে গনতন্ত্র, ভেটাধিকার, স্বাধীন বিচার ব্যবস্থা এবং মৌলিক অধিকার ) সাথে সংগতিপূর্ণ ।  তুমি নিশ্চয়ই সমর্থন করবে যে বর্তমান সরকারের অধীনে ভোটাধিকারহীনতা এবং নির্বাচন ব্যবস্থা ধ্বংসের বিদ্যমান চিত্রের কারনেই তত্বাবধায়ক ব্যাবস্থা জনগনের মৌলিক দাবিতে পরিনত হয়েছে । আমি বলেছি, সংবিধানের ত্রয়োদশ সংশোধনী মামলার রায় পড়লে দেখা যায় এই মামলার রায় দেওয়ার সময় বাংলাদেশ সুপ্রিমকার্টের সাতজন বিচারপতির সামনে মূলত: দুইটি ইস্যু ছিল । 
ইস্যু নং - ১ : সংবিধানে তত্বাধায়ক সরকারের  বিধান সাংবিধানিক না অসাংবিধানিক ? 
    এই প্রশ্নের উত্তর দিতে যেয়ে ৭ জন বিচারপতির ৪ জন বলেছিলেন তত্বাবধায়ক সরকারের বিধান অসাংবিধানিক এবং তিনজন বিচারক বলেছিলেন সাংবিধানিক । 

ইস্যু নং - ২ : তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে পরবর্তী দুইটি নির্বাচন হবে  কি ? 

     এই প্রশ্নের উত্তরে যে চারজন বিচারপতি তত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থাকে অবৈধ বলেছিলেন উন্মুক্ত আদালতে প্রথমে তারা সবাই বলেছিলেন , হ্যাঁ , পরবর্তী দুইটি নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হতে পারে । পরে অবশ্য লিখিত রায়ে ঐ চারজনের  একজন বলেছিলেন পরবর্তী দুইটি নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হতে পারে প্রধান বিচারপতি কিংবা বিচারপতিদের নিয়োগের বিধান বাদ দিয়ে । চারজনের মধ্যে অন্য তিনজন বললেন, নির্বাচনকালীন সরকার হতে পারে , তবে তা সংসদ যেভাবে চাইবে সেইভাবে । উল্লেখিত অবস্থায় প্রথম যে তিনজন বিচারপতি তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনকে বৈধ বলেছিলেন তাদের সাথে পরবর্তী দুইটি নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হতে পারে বলে যিনি বললেন তার মতামত যোগ করলে দাঁড়ায়- পরবর্তী দুইটি নির্বাচন তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে হতে হবে - এই মতের পক্ষে ৭ জনের মধ্যে ৪ জন ছিলেন । সুতরাং, তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অন্তত পক্ষে পরবর্তী দুইটি নির্বাচন হওয়ার রায় সুপ্রিমকার্টেরই ছিলো । ইস্যুভিত্তিক এই ধরনের যোগ বিয়োগ সূত্রের আইনী সমাধানের ভিত্তি রচিত হয় ইন্ডিয়ান সুপ্রিমকার্টের Basic Structure Theory’ক উপর প্রদত্ত বিখ্যাত  রায়ে ( Keshavananda  Bharoti - VS- State of Kerala - AIR 1973 SC 1461 ) । 
মাধবী, তত্ব তোমার জন্য নয়, আমার জন্য তোমার মন উঁচাটন নয়, বিরহ বাসরে তুমি নেই , তাই আমার তত্ব তোমার ভালো লাগবে না জেনেও লিখলাম ! হামজাময় জীবনে তুমি বর্ণিল, তোমাতে প্রদত্ত নিরেট  নৈবেদ্য নিবেদনের নিখাঁদ মুগ্ধতায় আমি বেঁচে আছি । আমি বৃষ্টির কাছ থেকে কাঁদতে শিখেছি, আমার আর কান্নার ভয় দেখিয়ে লাভ নেই ! পৌষের কাছাকাছি রোদ মাখা দিনের প্রত্যাশায় আমার নিত্য সময় কাটে মাধবী ! তুমি ভালো থেকো , ভুলে থেকো ……..

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2