avertisements 2

সিডনির ক্যাম্বেলটাউনের ডেপুটি মেয়র মাসুদ খলিলের নাগরিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত

নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশ: ১২:০০ এএম, ১ অক্টোবর,রবিবার,২০২৩ | আপডেট: ০৪:৪০ এএম, ১৮ জুন,মঙ্গলবার,২০২৪

Text

উৎসাহ উদ্দীপনায় ও আনন্দঘন পরিবেশে সিডনির ক্যাম্বেলটাউন সিটি কাউ‌ন্সি‌লের নব নির্বাচিত ডেপুটি মেয়র ইব্রাহিম খলিল মাসুদের নাগরিক  সংবর্ধনা অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।গত ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২৩ সোমবার সিডনির সিডনির ল্যাকেম্বা লাইব্রেরি হলে কমিউনিটি ইয়ুথ এন্ড সিটিজেন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন বা CYCDO. উদ্যোগে এ নাগরিক সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।

 কমিউনিটি ইয়ুথ এন্ড সিটিজেন ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশনর সভাপতি এম,এ ইউসুফ শামীমের সভাপতিত্বে এবং মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফার সঞ্চালনায় আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিশিষ্ঠ শিক্ষাবিদ শিবলী সোহায়েল । বক্তব্য রাখেন হোসেন আরজু (লিডার, বাংলাদেশী সিনিয়র সিটিজেন অব অস্ট্রেলিয়া), এরপর ক্রমান্বয়ে মাহমুদ চৌধুরী (সভাপতি আইপিডিসি),মনিরুল হক জর্জ (সাবেক সভাপতি বিএনপি অস্ট্রেলিয়া) ,লিয়াকত আলী সপন(সাবেক সাধারণ সম্পাদক  বিএনপি অস্ট্রেলিয়া), ডক্টর হুমায়ের চৌধুরী রানা (সাবেক সভাপতি জিয়া পরিষদ অস্ট্রেলিয়া), কুদরত উল্লাহ লিটন (সাবেক সভাপতি জিয়া পরিষদ অস্ট্রেলিয়া). ডাক্তার মইনুল ইসলাম(সভাপতি, শাপলা শালুক লায়ন্স ক্লাব-অন্যতম প্রতিষ্টাতা বাংলাদেশী মেডিক্যাল সোসাইটি অফ NSW, চেয়ারম্যান সাপলা শালুক ফাউন্ডেশন) এবং অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ আলী শিকদার প্রমুখ।

বক্তারা ক্যাম্বেলটাউন সিটি কাউ‌ন্সি‌লের মুসলিম ও অ্যাথনিক মাইনরিটির মধ্যে প্রথমবারের মতো ডেপুটি মেয়র নির্বাচিত হয়ে ইতিহাস গড়ে কমিউনিটির মুখ উজ্জ্বল করায়  ইব্রাহিম খলিল মাসুদেকে আন্তরিক অভিনন্দন জানান।

অনুষ্ঠানে অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগ, বিএনপি, ইসলামিক সংগঠন আইপিডিসি ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রথম সারির নেতা কর্মী,বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর, একাডেমিক, ডাক্তার, প্রকৌশলী, অস্ট্রেলিয়ান সরকারের বিভিন্ন সংস্থার উচ্চ পদস্থ প্রবাসী বাংলাদেশীরা সহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেনীর নাগরিকগণ উপস্থিত হয়ে অনুষ্ঠানকে আকর্ষনীয় করে তুলেন। রাতের খাবার পরিবেশন মাধ্যমে অনুষ্ঠানে সফল সমাপ্তি ঘটে।

প্রসঙ্গত  কোভিডের দুর্যোগের সময় মানুষ যখন ঘর থেকে বের হতে ভয় পেতো বা ঘর থেকে বের হওয়া নিষেধ ছিল, তখন এ সংগঠন অসহায় মানুষের ঘরে ঘরে যেয়ে খাবারের বক্স দিয়ে এসেছে । সিডনিতে প্রথম নির্দলীয় বাংলাদেশী সংগঠন এ ধরনের মহতী উদ্যোগ নেয়, যা ছিল অত্যন্ত প্রশংসনীয়। এ সংগঠনের বিভিন্ন ধরনের জনহিতকর কার্যকলাপ অস্ট্রেলিয়ার সিনিয়র মিনিস্টারদের দৃষ্টি কেড়ে নেয়। মাননীয় মন্ত্রী টনি বার্ক এমপি CYCDO এর কাজে সন্তুষ্ট হয়ে ২০২০ সালে বিশেষ প্রশংসা পত্র প্রদান করেন। তাছাড়া অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন মন্ত্রী , নিউ সাউথ ওয়েলস রাজ্য সরকার, অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরা থেকেও বিভিন্ন সরকারি ডিগনেটোরিসরা এ সংগঠনের প্রশংসা করেন। পেনডেমিক এর ভয়াবহ সময়ে যখন মানুষ ঘর থেকে বের হতো না, তখন এ সংগঠনটি বাংলাদেশ কমিউনিটিতে প্রথম উদ্যোগ নেয় খাবার বিতরণের। অসহায় বিভিন্ন ছাত্র, পরিবার ও রিফিউজিদের বাসায় বাসায় যেয়ে নিত্য প্রয়োজনীয় খাবার দিয়ে আসতো। মূলত সংগঠনের সভাপতি জীবনের উপর ঝুঁকি নিয়ে মানুষের বাসায় বাসায় খাবার পৌছিয়ে দিতো। এক পর্যায়ে তিনি নিজেই অসুস্থ হয়ে বিছানায় পড়ে গেলেন। সুস্থ হয়ে আবার শুরু করেন একই কর্মসূচি। ল্যাকেম্বাতে তাবু গেড়ে মাস ব্যাপী এ ধরনের কর্মকান্ডে নিজে এগিয়ে আসেন, সুপ্রভাত সিডনিতে আহবান করে অন্যান্য সংগঠনগুলোকে এগিয়ে আসতে উৎসাহিত করেন। কেন্টাবুরি – ব্যাংকসটাউন সিটি কাউন্সিল এ সংগঠনের সকল কর্মকান্ড নিবিড় ভাবে পর্যবেক্ষন করে ২৬ জানুয়ারি ২০২২ সালে Organaisation of the Year ঘোষণা করেন। বিভিন্ন ধরনের কর্মকান্ডের ভিতর সম্প্রতি একজন বাংলাদেশি ক্যান্সার আক্রান্ত ছেলের পাশে দাঁড়িয়ে কমিউনিটির সহযোগিতায় সাফল্যের সাথে চিকিৎসা ও মারা যাবার পর দাফন সম্পন্ন করেন।

বিষয়:

আরও পড়ুন

avertisements 2