Main Menu

শুধু মাধবীর জন্য 

মো: আসাদুজ্জামান : প্রিয়, এক বন্ধুর ওয়ালে দেখলাম সহস্র মৃত্যু ছুঁয়ে রেড জোনে আমরা  ! তুমি নিশ্চয়ই জানো মার্চ ‘২০ এর আগে শুধু তোমার জন্য, তোমার দেওয়া যন্ত্রনাময় যাপিত জীবনে  প্রতিদিন হ্বদয়ে রক্তক্ষরন  হতো, ছটফট করতাম । তুমি শুনতে, বুঝতে, আর আমার নীলবেদনা উপভোগ করতে , আরো বেশী দহনে পোড়াত ! আজ আর তোমার জন্য নয় , দেশের জন্য রক্তক্ষরণ হয় । তোমার দেওয়া নিত্যদিনের যন্ত্রনা এখন নগন্য হয়ে পড়েছে, ভাটি গাঁ’য়ের মরা নদীর মত । কবি নবারুন ভট্রাচার্যের মৃত্যু উপত্যকা কবিতা পড়েছো তো ? তোমার কি এখনও মনে হয় না সেই মৃত্যু উপত্যকার মহাসড়কে তুমি, আমি, আমরা , আমাদের স্বজন, বন্ধু, আত্মীয়সহ আমাদের প্রিয় দেশবাসী দাঁড়িয়ে আছি ? আমরা কি এক অনির্ধারিত অন্ধকার ভবিষ্যতের দিকে ধাবিত হচ্ছি না ? আমি জানি অনির্দিষ্ট , অগনিত মানুষের মতো, আমার মতো, আমাদের মতো তুমিও এই নিকষ কালো আঁধারসম সময় পেরোবার অপেক্ক্ষায় । করোনার এই মহামারিতেও যশোরে এক ছাত্রনেতা নিখোঁজ রয়েছে ১৩ জুন,  ‘২০ তারিখ থেকে । পরিবারের অভিযোগ আইনশৃংখলা বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে তুলে নেওয়া হয়েছে । এই কঠিন প্রাকৃতিক দূর্যোগে প্রতিটি মানুষ যখন মৃত্যুর প্রহর গুনছে, তখনও গুমের সংস্কৃতি চলমান । এগুলো তো তোমাকে কাঁদাবে না, আমাকে কাঁদায় ।
           
প্রিয় , আমার মতো তুমিও হয়তো দ্যাখো নিত্যদিনের প্রেস ব্রিফিং , বাংলাদেশে করোনায় আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে চলার পারদ । অনেক আগের থেকেই সোস্যাল মিডিয়ায় নিন্দুকেরা বলছেন প্রকৃত সংখ্যা এর থেকে অনেক বেশী । বিশ্বখ্যাত সংবাদ মাধ্যম The Economist ইতিমধ্যেই রিপোর্ট করেছে শুধু ঢাকা শহরেই  আক্রান্ত সাড়ে সাত লাখ । খবর পাচ্ছি হাসপাতালে করোনা রোগীদের জন্য সীটের তীব্র সংকট । সাধারন চিকিৎসা ব্যবস্থা ভংগুর প্রায়, তবুও অনেক চিকিৎসক তাঁদের মানবিক মূল্যবোধ , পেশাদারিত্ব এবং নৈতিকতা দিয়ে প্রাণপন মানব কল্যানে অসীম সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন । পুলিশ, RAB, সেনাবাহিনী, সিভিল প্রশাসন এই মহামারীর সময় সরকারের নীতিনির্ধারকদের সংকোচন এবং একলা চলো নীতিমালার আলোকে নির্দেশনা অনুযায়ী করোনাকালীন সময়ে মানুষের পাশে থাকার জন্য তাদের সাধ্যমত চেষ্টা করে যাচ্ছেন । ইতিমধ্যেই করোনা আক্রান্ত হয়ে বেশ কয়েকজন ডাক্তার ও পুলিশ মারা গেছেন । সাংবাদিকবৃন্দও ঝুঁকি নিয়ে ফ্রন্টলাইনারদের তালিকায় থেকে অনবদ্যভাবে ঝুঁকিপূর্ন দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন । এসো আমাদের সবটুকু ভালোবাসা দিয়ে এদের শ্রদ্ধা জানাই । 
ইতিমধ্য নিশ্চয়ই  শুনেছো বা জেনেছো যে , শুরুর দিকে প্রধানত: সরকারী দল এবং এর অঙ্গ সংগঠন সমূহের বিরুদ্ধে ত্রান চুরির মহোৎসবের অভিযোগ উঠেছে যা সকলের মত তুমিও অবগত । তুমি জানো মাধবী , এ নিকষ কালো আঁধারের মাঝে কয়েকটি প্রশ্ন আমার মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে । সেই চিন্তার জগতে অবশ্য তুমি নেই , কিছু যেন মনে করো না । এ দু:সময়ে প্রশ্ন জাগছে আমাদের প্রিয় দেশ কি নবারুন ভট্টাচার্যের কবিতার উপমার মতো মৃত্যু উপত্যকায় রয়ে যাবে ? প্রশ্ন হলো - এই মৃত্যুর মিছিল কি  রাজনৈতিক স্বৈরতন্ত্র এবং জনবিচ্ছিন্ন আমলাতান্ত্রিক মোকাবিলা নীতির কারনে ? 

আমি বলছি না অপশাসন, দূর্নীতি, চাল চোর, গম চোর, ত্রানের টাকা চোর , গনতন্ত্রহীনতা , অবিচার, অনাচার, দলীয়করন, খুন, গুম , হেফাজতে হত্যা ইত্যাদির কারনে আমরা করোনার ক্রান্তিকালে এসে পড়েছি; আমি বলছি না এ সবই বিচারহীনতার শিকার অতৃপ্ত আত্মাদের দীর্ঘশ্বাসের জন্য ; আমি বলছি না এগুলো কোন স্বজন হারানোর আর্তনাদের কারনে হয়েছে ! তবে, এটা বিশ্বাস করতে কোন অসুবিধা হচ্ছে না যে প্রশ্নবিদ্ধ ভাবে নির্বাচিত সরকার বাহাদুরের নিরংকুশ নিয়ন্ত্রন নীতি করোনা বিস্তারে সহায়ক ভূমিকা রেখেছে, সরকার সেই ব্যর্থতার দায় এড়াতে পারেনা । শুরুর দিকে বিমানবন্দর লকডাউন করলে হয়তো কিছুটা নিয়ন্ত্রন করা যেতো । সেটা করা হয় নি । বরং , সরকারী দলের একজন মন্ত্রি বলেছিলেন তাঁরা করোনার চেয়েও শক্তিশালী ! এই দাম্ভিক মানসিকতা আমাদের পিছিয়ে দিয়েছে , তোমারও কি তা মনে হয় না  মাধবী ? করোনাকালীন সময়ে আমাদের স্বাস্হ্য ব্যবস্থা এবং এর অবকাঠামো দৃশ্যমান ভংগুর অবস্খার জন্য অবশ্য শুধুমাত্র এই সরকারই দায়ী এমন বিবেকহীন মন্তব্য আমি করবো না, করলেও তুমি মানবে না তা আমি জানি ! তবু বলি, বিগত এক দশকে সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীদের অবিরাম বেতন বাড়ানো হয়েছে, দেশে রাজনৈতিক পৃষ্ঠপোশকতায় দূর্নীতি-লুটপাটের সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে, খুন-গুমের বিভৎস মহড়া চলেছে, মানবাধিকার  লংঘিত হয়েছে , ভোট ডাকাতির মাধ্যমে গনতন্ত্র  হত্যা করার মতো সাংবিধানিক অপরাধ হয়েছে  , কিন্ত একটি ভ্রাম্যমান অ্যামবুলেন্স কেনার কথা মনে পড়েনি কারও । কি অদ্ভুত এক স্বদেশে আমাদের জীবন বহমান প্রিয় ! এই কি আমাদের জীবনের অর্থ প্রিয় ? 

তুমি নিশ্চয়ই অবগত আছো যে, সরকারের তথ্যমতে ৫০ লক্ষের সরকারী ত্রানের তালিকায় ৮ লক্ষই ভুয়া ; তোমার কি মনে হয় না যে , উক্ত তালিকায়  কোটিপতিদের, চেয়ারম্যানদের কিংবা নেতাদের বা তাদের আত্মীয়দের নাম থাকাটা অপরাধ ; তুমি কি ভাবতে পারো না যে ভোট ডাকাতির নির্বাচনের ফলে, গনতন্ত্রহীনতার নির্যাসে, স্বৈরতন্ত্রের চর্চায় , “আইনেস” কিংবা “মাইওপিকের” কারনে এই মৃত্যু উপত্যকায় পরিনত হয়েছে আমার এ স্বদেশ, আমার জননী জন্মভূমি , আমার চিন্তার পূন্যভূমি ? 

 এ দু:সময়ে প্রমানিত যে এ রোগের চিকিৎসা কুয়াশাচ্ছন্ন , অর্থ-বিত্ত মৃত্যু এবং আক্রান্ত হওয়া ঠেকাতে পারছে না । সরকারী শীতল সংকোচন এবং একলা তলের মতো ভুল নীতির কারনে সংক্রমন ঠেকানো যাচ্ছে না । মানুষ ক্ষুধা এবং জীবিকার প্রয়োজনে জীবনের ঝুঁকি নিচ্ছে । এই অবস্থায় এখনই উচিত সর্বদলীয় সমন্বিত উদ্যোগ গ্রহন করা, রাজনৈতিক সংকীর্ণতা পরিহার করা, লুটপাটের সব পথ বন্ধ করা , এলাকা ভিত্তিক নয়, গোটা দেশ একই সাথে দুই সপ্তাহের জন্য কঠোর লকডাউন ঘোষনা করা । এরপর আক্রান্তদের দ্রুত সনাক্ত করে আইসোলেশনে নিয়ে যতটুকু চিকিৎসা আছে ততটুকু দিয়ে সুস্থ করে তোলা । সেটা না করে যদি এভাবে চলতে থাকে তাহলে দেখে নিও প্রিয় , এই মৃত্যুর মিছিল বাড়বে , যে মিছিলের শব্দহীন-বাক্যহীন সতীর্থ হয়তো তুমি আমি আমরা হয়ে যাবো । মন্ত্রী-এমপি-ধনী-ক্ষমতাবান কেউ সেই মিছিল থেকে পিছিয়ে থাকবে না , পিছনে পড়ে থাকবে বিরান ভূমি ! 
এই জীবনে তোমার সাথে দেখা হবে না, ঐ জীবনে হয়তো বেহেস্তের বাগিচায় কোন নির্জন নীরবতায় কথা হবে ফিসফিসিয়ে ! 
ভালো থেকো আমার কুঁয়াশাচ্ছন্ন মাধবী, আমার কল্পনার মাধবী , আমার দু:খ বিলাস, আমার সুখের অনুভূতি !!
 
লেখকঃ আইনজীবি ও রাজনৈতিক কর্মী ।
১৫ জুন ‘২০, ঢাকা ।


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT