Main Menu

এইচএসসি পাসেই এমবিবিএস ডাক্তার!

জহিরুল ইসলাম (৪৪) ১৯৯৩ সালে এইচএসসি পাস করার পর নিজেকে এমবিবিএস ডাক্তার হিসেবে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। তার এ ভুয়া চিকিৎসার খবর পেয়ে মঙ্গলবার তাকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১১ সদস্যরা। জহিরুল ইসলাম কুমিল্লার বুড়িচংয়ের জগতপুর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

মঙ্গলবার র‌্যাবের পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, গ্রেফতার হওয়া জহিরুল ইসলাম ১৯৯৩ সালে এইচএসসি পাস করে এক বছর যাবৎ সনোলজিস্ট হিসেবে আল্ট্রাসনোগ্রাম করে আসছিলেন। র্যাছবের অভিযানে তিনি এমবিবিএস ডাক্তারের কোনো সনদ দেখাতে পারেননি।

র‌্যাব-১১-এর মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে জহিরুল ইসলাম স্থানীয় স্কুল থেকে ১৯৯০ সালে এসএসসি এবং ১৯৯৩ সালে স্থানীয় কলেজ থেকে ২য় বিভাগ পেয়ে এইচএসসি পাস করেছেন বলে স্বীকার করেছেন।তিনি মূলত মেডিকেল অ্যাসিসটেন্ট হিসেবে কাজ করতেন।

২০০৩ সালে প্রায় পাঁচ লাখ টাকা দিয়ে একটি নকল ভারতীয় এমবিবিএস/এএম সার্টিফিকেট ক্রয় করে এবং তা ব্যবহার করে রোগীদের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ নিজেকে এমবিবিএস ডাক্তার ও (সনোলজিস্ট) মা, শিশু, চর্ম ও যৌন রোগের অভিজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিয়ে কুমিল্লা ডায়াগনস্টিক কমপ্লেক্স (সিডি কমপ্লেক্স) এ রোগীদের প্রেসক্রিপশন ও আল্ট্রাসনোগ্রামসহ অন্যান্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা এবং মনগড়া রিপোর্ট তেরি করে আসছিলেন।

তিনি তার নামের পাশে ডাক্তারী ডিগ্রি হিসেবে নিজেকে ডা. মো. জহিরুল ইসলাম, এমবিবিএস, পিজিটি (মেডিসিন অ্যান্ড গাইনী), সিএমইউ (ডিইউ), ডিএমইউ (ডিইউ), (সনোলজিস্ট) মেডিসিন, মা, শিশু, চর্ম ও যৌন রোগের অভিজ্ঞ চিকিৎসক হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছিলেন। গ্রেফতার হওয়া ডাক্তারের বিরুদ্ধে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় আইনানুগ কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলে জানায় র‌্যাব।

 


ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT