Main Menu

অন্যরকম সংবাদ

ছ’কেজির রসগোল্লা ফুলিয়ায়

image

এ যেন বিশ্ব জয়ের আনন্দ। নিখুঁত ভাবে ‘সর্ব বৃহৎ’ রসগোল্লাটা তৈরি হতেই যেন মুহূর্তে উৎসবের পরিবেশ তৈরি হয়ে গেল ফুলিয়ার বাসস্ট্যন্ড মোড় এলাকায়। অনেকেই আনন্দে জড়িয়ে ধরলেন পরস্পরকে। ক’দিন আগে রসগোল্লার পেটেন্ট পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। আর বিভিন্ন তথ্য ঘেঁটে পাওয়া যায় যে এই ফুলিয়ারই বাসিন্দা হারাধন ময়রাই প্রথম তৈরি করেছিলেন বিশ্বখ্যাত এই মিষ্টিটাকে। বেশ কয়েক দিন আগেই এই  প্রাপ্তিকে স্মরণীয় করে রাখতে এক অভিনব পরিকল্পনা করে স্থানীয় জুনিয়র ওয়ান হান্ড্রেড ফাউন্ডেশেন ও আলবেকা ফাউন্ডেশনের সদস্যরা। তাঁরা এগিয়ে এলেন সব চাইতে ‘বড়’ রসগোল্লা তৈরির জন্য। সেই মত ররিবার সকাল থেকে ফুলিয়া বাস স্ট্যান্ড রোডে ফ্লেক্স টাঙিয়ে সাজিয়ে দেওয়া হয়। সন্ধে নামার সঙ্গেবিস্তারিত


বাংলাদেশে নারীদের মধ্যে মাদকাসক্তি বাড়ছে কেন?

4185_1

অহনা। এখানে তার ছদ্ম নাম ব্যবহার করা হচ্ছে। পড়াশোনায় অত্যন্ত ভালো ছিলেন কিন্তু এখন সেসব বাদ দিয়েছেন। বছর খানেক হল তিনি মাদক গ্রহণ করছেন। প্রথমে সিগারেট দিয়ে শুরু আর এখন ইয়াবা। অহনা বলছিলেন “বাসায় বাবা মায়ের সাথে সমস্যা। সিগারেট খাওয়া শুরু করলাম। একদিন বন্ধুরা বললো ইয়াবা নে। আমি ভাবলাম দুই-একটা খাবো তারপর ছেড়ে দেবো কিন্তু আমার অবস্থা এমন হলো আর ছাড়তে পারলাম না।” অহনা মাদকাসক্ত হওয়ার কারণ হিসেবে দাবি করছিলেন বাবা-মায়ের সাথে কলহ এবং তাদের কাছ থেকে কাঙ্ক্ষিত সময় তিনি পাচ্ছিলেন না। একটা পর্যায়ে বন্ধুবান্ধবের সাথে কৌতুহলবশত তিনি মাদক নেন। বাংলাদেশের মাদক বিরোধী সংস্থা মানস বলছে দেশে প্রায় ৭০ লাখবিস্তারিত


মাটি কেটে ডাক্তার বানানো সেই মায়ের সন্তানের কৃতজ্ঞতাবোধ

4171_1

‘মাটি কেটে সন্তানকে ডাক্তার বানাচ্ছেন মা’ এমন একটি সংবাদ প্রকাশ হয় দেশের অন্যতম শীর্ষ অনলাইন নিউজপোর্টালে। এরপর দেশজুড়ে শুরু হয় ব্যাপক আলোচনা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ফলে সংবাদটি স্থান করে নেয় বিদেশেও। এরপর দেশ-বিদেশ থেকে অসংখ্য হৃদয়বান ব্যক্তি লেখাপড়াসহ সার্বিক সহযোগিতার প্রস্তাব দেন মায়ের সেই সন্তানকে। ওই নিউজের পরিপ্রেক্ষিতে অনেকে ফেসবুকে বিরূপ মন্তব্যও করেছিলেন। লিখেছিলেন, ‘মা যে সন্তানের জন্য এত কিছু করছে শেষ পর্যন্ত সন্তান মাকে দেখবে তো’। আরো অনেক মন্তব্য। তবে এসবের সাবলীল জবাব দিয়েছেন সন্তান রিপন বিশ্বাস। যখন থেকেই গ্রীণলাইফে ভর্তি হয়েছেন কলেজের যেকোনো অনুষ্ঠান হলেই মাকে সবার সামনের আসনে বসান এবং কখনো নিজের পরিচয় দিতে কৃপণতা করেননি যেবিস্তারিত


সেই ১৯৫৩ সাল থেকে তাহাদের প্রেম

couple-5

গল্পের শুরুটা খুব সাদামাটা। ১৯৫৩ সালের কথা। ২৪ বছর বয়সী একটি ছেলের বিয়ের কথাবার্তা চলছিল ১৪ বছরের একটি মেয়ের সঙ্গে। সেই সময়ে ফটো দেখে পছন্দ করার প্রচলন ছিল না বললেই চলে। এমনকি পাত্রপাত্রীও একে অপরকে দেখে নেয়ার সুযোগ ছিল না তেমন। তাই ছেলেটির বাবা এবং ছোট ভাই গিয়েছিলেন মেয়েকে দেখতে। ছেলের জন্য মেয়েটিকে বেশ যোগ্যই মনে হলো বাবার কাছে। মায়া ভরা মুখের সেই মেয়েটিকে প্রথম দর্শনেই পুত্রবধূ হিসেবে পছন্দ করলেন তিনি। ছেলের বাবা শুনেছেন মেয়ে ক্লাস এইট পর্যন্ত পড়েছে। সেই সময়ে এত শিক্ষিত মেয়ে পেয়ে দারুণ খুশি ছেলের বাবা। মেয়েটির নাম ইংরেজি এবং বাংলায় লিখতে বললেন। গোটা গোটা অক্ষরে খুববিস্তারিত


মায়ের আব্দার পূরণে যা করলেন ফরেন ক্যাডার ওয়ালিদ ইসলাম

4152_1

মায়ের আব্দার পূরণে যা করলেন ফরেন ক্যাডার ওয়ালিদ ইসলাম পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ওয়ালিদ ইসলাম তার ফেসবুকে লিখেছেন, “আমার তোর অফিসটা খুব দেখতি ইচ্ছা করে। আমি এট্টু তোর অফিসি আসতি চাচ্ছি। তুই কোন জাগা চাকরি করিস দেখতি পারলি ভাল ঠ্যাকতো।” — আজ তাই মায়ের আব্দারটা ফেলতে পারলাম না। মাকে আমার অফিসটা দেখালাম। ওয়ালিদ ইসলামের ফেসবুক স্ট্যাটাস ও ছবি পোস্টের পরে অনেকেই গর্বিত মা ও ছেলের প্রশংসা করে মন্তব্য করেছেন। এই মেধাবী তরুণের ফেসবুকে দেখা যায় নানা সামাজিক সচেতনতামূলক এবং সাহসী কাজের নমুনা। তেমনি একটি ঘটনা তার ফেসবুক থেকে পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো- ওয়ালিদ ইসলাম গতকাল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় এর অনেক জুনিয়রবিস্তারিত




ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT