Main Menu

অন্যরকম সংবাদ

রিকশাচালক বাবার অন্যরকম ডাক্তার মেয়ে

strange-story-305

‘আমি ও আমার স্ত্রী সবসময় একটি মেয়ে সন্তান চাইতাম। আমাদের ঘরে তিন ছেলে সন্তান রয়েছে। কিন্তু আমি মনে করতাম আমাদের একটি মেয়ে সন্তান না থাকায় আমাদের অপূর্ণতা রয়েছে।’ কথাগুলো বলছিলেন ৫৫ বছর  বয়সী বাবলু শেখ। পেশায় তিনি একজন রিকশাচালক। প্রায় ৩০ বছর ধরে তিনি রিকশা চালান। তিনি বলতে থাকেন, ‘আমি রিকশাচালক বিধায় আমার যাত্রীদের অনেকেই আমার সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতেন’। ‘একদিনের ঘটনা। প্রতিদিনকার মতো আমি সেদিন রিকশা নিয়ে বের হয়েছি। এক বাবা তার কলেজপড়ুয়া মেয়েকে কলেজ পৌঁছে দিতে আমাকে ডাকেন। সেই বাবা আমাকে সাবধানে যেতে বললেন। তিনি তার মেয়েকে রিকশা ভালোভাবে ধরে রাখতে বললেন। আর ওই বাবা আমাকে বার বার সাবধানেবিস্তারিত


চোখ বুঝলেই ভেসে আসে হাজারো মেয়ের সতীত্ব হারানোর চিৎকার

call girl

শামীমুল হক: যখন বুঝলাম, তখন সব শেষ। জীবন সায়াহ্নে এসে এখন একাকিত্ব জীবন। স্ত্রী-সন্তান কেউ আমায় ডাকে না। কেউ আমাকে আদর করে কাছে টানে না। ভাইবোন সবাই দুর দুর করে তাড়িয়ে দেয়। নির্ঘুম রাত কাটাই। চিন্তা করি, এটাই আমার জীবনে পাওয়া ছিল। এটাই আমার শাস্তি। এর চেয়ে বড় শাস্তি এলেও মাথা পেতে নেবো। কারণ আমি জীবনের ছত্রিশটি বছর কোনো ভালো কাজ করিনি। কত মেয়ের জীবনকে অন্ধকারে ঠেলে দিয়েছি এর হিসাব নেই। আমার হাত ধরে পতিতার খাতায় নাম লিখিয়েছে এমন অনেক নাম আমার জানা। এক নামে আমাকে পতিতার দালাল হিসেবে চিনে রাজধানীর আবাসিক হোটেল মালিকরা। পুলিশের খাতায়ও আমার নাম আছে। তফাবিস্তারিত


কোটিপতি পারুল এখন বৃদ্ধাশ্রমে

1492513564

সত্তরোর্ধ্ব সাফাক আরা সোবহান ওরফে পারুল। স্বামী ছিলেন নামকরা চিকিৎসক। রাজধানীর বনানীতে আছে বিরাট বাড়ি। আছে উত্তরাতেও। যার আনুমানিক মূল্য দেড়শ’ কোটি টাকা। বড় ছেলে মাহবুব চিকিৎসক। দুই মেয়ের একজন বিসিএস ক্যাডার। পরিবারে আছে বলতে ছেলে, ছেলের বউ আর নাতি-নাতনী। বৃদ্ধ বয়সে তাদের সঙ্গেই থাকার কথা ছিল তার। নাতি নাতনীদের সঙ্গে জীবনের শেষ সময়টা হয়তো কাটাতে পারতেন। কিন্তু তেমনটা ঘটেনি। জীবন সায়াহ্নে এসে সাফাক আরাকে এখন থাকতে হচ্ছে ইন্দিরা রোডের একটি হোস্টেলে। বছর দশেক আগেও বনানীর বাসায় তার ছিল সুখের সংসার। স্বামী শেখ আব্দুস সোবহান আর সন্তানদের নিয়ে ভালই কাটছিল। তবে স্বামীর মৃত্যুর পর বদলে যায় সব। তুমুল ঝড় বৃষ্টিরবিস্তারিত


সম্পর্কের কাছে হার মেনেছে যখন একটা কাঁটাতারের বেড়া

Thakurgaon-Boder-Pic-120170415221327

নববর্ষ উপলক্ষে ঠাকুরগাঁওয়ে সীমান্তে প্রতিবারের ন্যায় এবারও দুই বাংলার মিলন মেলা হয়েছে। অনেকদিন পর আপনজনের দেখা পেয়ে কেঁদে বুক ভাসান দুই বাংলার বাঙালি। এসময় তারা বিনিময় করেন মনের জমানো হাজারও কথা। শনিবার ঠাকুরগাঁও হরিপুর ও রাণীশংকৈল উপজেলার জনগাঁ, বুজরুক, বেতনা, ডাবরী সীমান্তের শূন্য রেখায় দুই বাংলার এই মিলনমেলা বসে। ঠাকুরগাঁও ৩০-বিজিবি ব্যাটালিয়ান ও ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের উদ্যোগে এ মিলন মেলার আয়োজন করা হয়। এদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঠাকুরগাঁও হরিপুর উপজেলার ডাবরী সীমান্তের প্রায় ১৫ কিলোমিটার এলাকাজুড়ে বাংলাদেশ ও ভারতের হাজার হাজার মানুষের এই মিলনমেলা বসে। মিলনমেলাকে কেন্দ্র করে উভয়দেশের সীমান্তে পর্যাপ্ত বিজিবি ও বিএসএফ মোতায়ন করা হয়। কঠোরবিস্তারিত


‘বছর শুরু হলো স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া দিয়ে’

1492162426

ডা. মীর জয়নাল আলীর বয়স ৭২। স্ত্রীসহ মোহাম্মদপুরের বাবর রোড থেকে এসেছেন হাজার কণ্ঠে বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে। বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের প্রথম ফটকেই তাদের থামিয়ে দেওয়া হয়। কারণ স্ত্রীর সঙ্গে ভ্যানিটি ব্যাগ। ব্যাগ নিয়ে ঢোকা যাবে না। বাধ্য হয়ে স্ত্রীর ভ্যানিটি ব্যাগ নিয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে রইলেন এই সাবেক সরকারী কর্মকর্তা। স্বামীকে রেখেই স্ত্রী গেলেন বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে। তার আগে দুজনের মাঝে হয়ে গেল ছোট্ট একটি ঝগড়া। স্ত্রী বলছিলেন, রিকশা নিয়ে বাসায় গিয়ে ব্যাগ রেখে আসতে। বললেন, ‘নিরাপত্তা এত কড়াকড়ি হবে তা কয়েক আগ থেকে গণমাধ্যমে জানালেই পারত।’ আজ শুক্রবার ভোর ছয়টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শুরু হয়েছে ‘সানসিল্ক নিবেদিত হাজারও কণ্ঠেবিস্তারিত




ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT