Main Menu

অগ্নাশয় ক্যান্সারের সাধারণ লক্ষণ

pancreas

আপনি যদি ক্রমাগত অগ্নাশয়ের সংক্রমণে ভোগেন বা স্থুলতার সমস্যায় ভোগেন তাহলে আপনার অগ্নাশয়ের ক্যান্সার হওয়ার ঝুঁকি বেশি। যদিও অগ্নাশয় ক্যান্সার হওয়ার সঠিক কারণ এখনো জানা যায়নি। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অগ্নাশয় ক্যান্সার বৃদ্ধি পাওয়া ও ছড়িয়ে যাওয়ার পরেই উপসর্গ দেখা দেয়। কারণ বেশীর ভাগ অগ্নাশয় ক্যান্সারই এডিনোকার্সিনোমা ধরণের। তবে এর উপসর্গগুলোর বিষয়ে জানলে প্রাথমিক অবস্থায় রোগ নির্ণয় করা সহজ হয়। চলুন তাহলে অগ্নাশয় ক্যান্সারের সাধারণ লক্ষণের বিষয়ে জেনে নিই।

অগ্নাশয় ক্যান্সার নীরবে এবং ব্যথাহীন ভাবেই বৃদ্ধি পেতে থাকে। যথেষ্ট বড় হয়ে গেলেই লক্ষণ প্রকাশ পায়। সাধারণত অগ্নাশয়ের বাহিরের দিকেই ক্যান্সার বৃদ্ধি পেতে থাকে। যদি অগ্নাশয়ের উপরের দিকে ক্যান্সার কোষ বৃদ্ধি পেতে থাকে তাহলে ওজন কমে যাওয়া, জন্ডিস, গাড় রঙের প্রস্রাব, হালকা রঙের মল, চুলকানি, বমি, পেটে ব্যথা, পিঠে ব্যথা এবং ঘাড়ের লিম্ফ নোড বড় হয়ে যাওয়া ইত্যাদি লক্ষণগুলো প্রকাশ পায়।

যদি অগ্নাশয়ের নীচের দিকে বা অগ্নাশয়ের শরীরে ক্যান্সার কোষ বৃদ্ধি পেতে থাকে তাহলে পেটে ব্যথা বা পিঠে ব্যথা এবং ওজন কমে যাওয়ার লক্ষণ প্রকাশ পায়।

১। জন্ডিস

হ্যাঁ শুধুমাত্র লিভারের ইনফেকশন বা লিভারের রোগের কারণেই জন্ডিস হয়না অগ্নাশয় ক্যান্সারের কারণেও জন্ডিস হতে পারে। যার ফলে চোখ ও ত্বক হলুদ হয়ে যায়। কারণ যকৃতে বিপাকের ফলে উপজাত হিসেবে বিলিরুবিন উৎপন্ন হয়। বিলিরুবিন পিত্তনালীর ভেতর দিয়ে প্রবাহিত হয় এবং ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধির কারণে অগ্নাশয় অবরুদ্ধ হয়ে যায়।

২। মলের রঙের পরিবর্তন হয়

অগ্নাশয় ক্যান্সারের একটি সাধারণ লক্ষণ হচ্ছে হালকা বর্ণের মল নির্গত হওয়া। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই অগ্নাশয় ক্যান্সারে আক্রান্তদের মল ধূসর বা খড়িমাটির মত সাদাটে বর্ণের হয়। পিত্তনালী অবরুদ্ধ হয়ে যাওয়ার কারণেই এমনটা হয়।

৩। গাড় বর্ণের প্রস্রাব

যেহেতু পিত্ত রঞ্জক যকৃতে জড়ো হতে পারেনা সেহেতু অতিরিক্ত রঞ্জক প্রস্রাবের সাথে বের হয়ে যায়। একারণেই অগ্নাশয় ক্যান্সারের রোগীদের প্রস্রাবের বর্ণ গাড় হয়। যা হতে পারে কমলা বা হালকা চা রঙের।

৪। পেটে ব্যথা

যদি অগ্নাশয়ের ক্যান্সার কোষ পেটের স্নায়ুর বিরুদ্ধে চাপ প্রয়োগ করে তাহলে পেটের উপরের অংশে এবং পিঠে ব্যথা হতে পারে। এই ব্যথা নিয়মিতই থাকে তবে নিস্তেজ অবস্থায় থাকে। পিঠের মধ্যভাগ ও উপরের অংশে এবং পেটে হয় এই ব্যথা। কিছু ক্ষেত্রে এই ব্যথা কাঁধেও ছড়িয়ে যেতে পারে।

৫। পেট ফাঁপা

প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারে আক্রান্ত বেশীরভাগ মানুষেরই বদহজমের সমস্যা হতে দেখা যায়। বিশেষ করে চর্বি জাতীয় খাবার খেলে। যদি আপনার ক্ষুধামন্দা, বমি বমি ভাব, ডায়রিয়া বা ওজন কমে যাওয়ার লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে একজন চিকিৎসকের সাথে কথা বলুন।

৬। ডায়াবেটিস

যদি আপনি ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হন তাহলে হঠাৎ করেই রক্তের গ্লুকোজের পরিমাণে পরিবর্তন হলে অথবা ডায়াবেটিসের আকস্মিক সূত্রপাত হলে এটি হতে পারে অগ্নাশয় ক্যান্সারের প্রাথমিক লক্ষণ। অগ্নাশয় ক্যান্সারে আক্রান্ত হলে ত্বকে চুলকানির সমস্যাও দেখা দিতে পারে।

Share Button


« (পূর্ববর্তী খবর)



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked as *

*



ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT