Main Menu

জাতীয় সঙ্গীতের বিকৃতি ও অবমাননা বন্ধ হোক

amar sonar Bangla

সম্প্রতি  ফেসবুকে  ছড়িয়ে পড়া  এক ভিডিও দেখা যায় যে, গত ২০শে জানুয়ারী সিডনিতে অনুষ্ঠিত মেলায় বাংলাদেশি তরুণ-তরুণীদের নিয়ে ফ্যাশন শো চলার সময় আবহসঙ্গীত হিসেবে অন্যান্য গানের সঙ্গে বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীতও বাজানো হয় এবং মডেলদের ক্যাটওয়াক চলতে থাকে এই সময়  অনেক দর্শকই অস্বস্তির মধ্যে পড়েন এবং এক পর্যায়ে তারা প্রতিবাদ করেন। এর পর আয়োজকরা তা বন্ধ করে ক্ষমা চান।  স্বাভাবিক ভাবে এই খবর কমিউনিটি ছড়িয়ে পর ফেসবুকে অনেকই ক্ষোভ প্রকাশ করেন। কয়েকজন সাংবাদিক এই বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন গন মাধ্যমে সংবাদ প্রচার করেন। কিন্তু দূঃখজনক বিষয় হলো আয়োজকরা গন মাধ্যমগুলোর কাছে তাদের ভূলের সংক্রান্ত  কোন বিবৃতি না দিয়ে সাংবাদিকদের উপর ব্যাক্তিগত আক্রমন করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যামে বিভিন্ন ধরনের স্ট্যাটাস দিতে দেখা যায়।

শুধু মাত্র ভিনদেশী অপারেটর বা যান্ত্রিক ত্রুটির দোহাই দিয়ে এই ধরনের ভুলের পক্ষে সাফাই হতে পারে না। এটা  নিঃ সন্দেহ বড় ধরনের ভূল এবং তার জন্য কমিউনিটি থেকে তিরস্কার আসতেই পারে কিন্তু অবনত মস্তকে তা মেনে না নিয়ে যুদ্ধংদেহী মনোভাব নিয়ে তা প্রতিরোধ  করতে যাওয়া বড় ধরনের বোকামি এবং নিন্দনীয় ।

ফিরে যাই অতীত ইতিহাসে। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’ গানটি এ দেশে ব্যাপকভাবে গাওয়া হয়েছে ষাটের দশকে সাংস্কৃতিক স্বাধিকার আন্দোলনের সময়। স্বাধীনতা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধের সময় আপামর জনগণের মনে বিশেষ স্থান করে নিয়েছিল গানটি।গানের প্রতিটি লাইনে রয়েছে বাংলা মাযের প্রতি অভূত ভালোবাসা। ১৯৭১ সালে এই গানটি স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র থেকে নিয়মিত প্রচার হতো। পরবর্তীতে ১৯৭২ সালে গানটির প্রথম ১০টি লাইন স্বাধীন বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে স্বীকৃত হয় (সুত্র: উইকিপিডিয়া)। এ গান আমাদের সংগ্রামী চেতনার সঙ্গে যেমন গাঁথা হয়ে গেছে তেমনি জড়িয়ে আছে আপামর জনগণের অসীম ভালোবাসায়।

একাত্তরের রক্তক্ষয়ী এক সংগ্রামের মাধ্যমে আমরা পেয়েছি স্বাধীন একটি দেশ, একটি মানচিত্র। আমরা পেয়েছি আমাদের দেশপ্রেমের চেতনায় আবৃত একটি জাতীয় সঙ্গীত। মনে রাখা দরকার যে জাতীয় সঙ্গীত এখন শুধু রবীন্দ্র সঙ্গীত নয়। জাতীয় সঙ্গীতের সাথে যুক্ত আছে আমাদের ইতিহাস, আমাদের স্বাধিকার চেতনা। যখন একটি দেশের জাতীয় সঙ্গীত হিসেবে কোনও সঙ্গীত স্বীকৃত হয় তখন তা নিয়ে অবশ্যই সুর বিকৃতি করা  বা তা দিয়ে ফ্যাশন শো  সেই সঙ্গীতের অবমাননা করার শামিল এবং তা গ্রহণযোগ্য হতে পারে না।

 এই  প্রবাসে  সস্তা জনপ্রিয়তা পাবার নোংরা খেলা থেকে জাতীয় সঙ্গীতকে দূরে রাখা হোক। বন্ধ হোক জাতীয় সঙ্গীতের অবমাননা, জাগ্রত হোক বিবেক।

Share Button







ADVERTISEMENT

Contact Us: 8 Offtake Street, Leppington, NSW- 2569, Australia. Phone: +61 2 96183432, E-mail: editor@banglakatha.com.au , news.banglakatha@gmail.com

ADVERTISEMENT